Saturday , May 15 2021

এই পৃথিবীতে আবার জ’ন্মালে ‘কোরআনের হাফেজ’ হতে চাই; তাসকিন

সাধারণ মানুষের মতো ক্রিকেটারদের জীবনও র’ক্ত-মাংসে গড়া। এ’কজন মানুষ হিসেবে তাদের শখ, পছন্দ-অ’পছন্দ ছিলো শৈশবে। আট-দশটা বাঙালি কি’শোরের মতো বেড়ে উঠেছে দুর’ন্তপনায়।

এই যেমন বাংলাদেশ জা’তীয় দলের ক্রিকেটার তাসকিন আহমেদ। ক্রি’কে’টের বাহিরে নানান রঙের গল্প আছে এই পেসারের। “যদি তিনি আবার এই পৃথিবীতে জ’ন্মাতেন তাহলে খেলার পাশাপাশি কোরআনে হাফেজ হতেন”।

নিম্নে স্পোর্ট’সজোন পাঠকদের জন্যে তাসকিনের ক্রিকেট ক্যারিয়ারের বাহিরের গল্প তুলে ধরা হলো- স্কুল, কলেজ, বি’শ্ববিদ্যালয় নিয়ে তাসকিন আহমেদ: কিং খালেদ ইনস্টিটিউট, স্টাম্পফোর্ড ইউনিভার্সিটি, আমেরিকান ইউনিভার্সিটি, ব্র্যাক ইউ’নিভার্সিটি (হাসি), এই দুটিতেই আছি।

গ্র্যা’জুয়েশন কোনটা থেকে কমপ্লিট করব এখনো শিওর না। অন্য’টাতেও ভর্তি হতে পারি। সবচেয়ে দুঃখের দিন কোনদিন? তাসকিন আহমেদ: যেদিন ১৯ বিশ্বকাপে (২০১৯ ওয়ানডে বিশ্বকাপ) শুনেছি আমি দলে নেই।

এক স’প্তাহের জন্য রাজা হলে কী করবেন? তাসকিন আহমেদ : এক সপ্তাহের জন্য রাজা হলে? দুনিয়ার সব দু’র্নীতি উঠায়ে দি’তাম আর গরিব থাকত না ওই অবস্থা করতাম মানে সাধ্যমতো।

বি’পদে পড়লে সবার প্রথমে কাকে ফোন দেবেন? তাসকিন আহমেদ : বাবাকে।
কোন ক্রি’কেটার এবং ফুটবলার কে পছন্দ করেন? তাসকিন আহমেদ : পছন্দের ক্রিকেটার মাশরাফি বিন মোর্ত্তজা। ফুটবলার সিআরসেভেন।

বাংলাদেশ জাতীয় দলে বন্ধু ক্রিকেটার কে? তাসকিন আহমেদ : সৌম্য, মোসাদ্দেক, এনামুল বিজয়। অটোগ্রাফ না সেলফি দেওয়া সহজ?

তাসকিন আহমেদ : সেলফি’টাই ইজি আসলে। অটোগ্রাফের ব্যাপারটা হলো অনেক সময় সবাইকে দেওয়া যায় না। হাতও ব্য’থা হয়। সেলফি’টাই ইজি এখন। নিজের সবচেয়ে বড় গুণ, দোষ?

তাসকিন আহমেদ : একটা গুণ যদি বলা হয়, আমি মানুষকে দ্রু’ত ক্ষমা করতে পারি। রাগ করে থাকতে পারি না বেশিক্ষণ। দোষ যদি বলা হয়, মানুষের কথাগুলা গায়ে লাগে, কয়েক দিন ধরে মাথায় থেকে যায়। আজকের এই অবস্থানে আসার পেছনে কার অবদান সবচেয়ে বেশি?