Friday , April 16 2021

দীঘির জন্য কোটি টাকা ক্ষ’তি হবে, আমি ওকে ছা’ড়বো না: ঝন্টু

সম্প্রতি প্র’কাশ পেয়েছে স্বনামধন্য নির্মাতা দেলোয়ার জাহান ঝন্টু পরিচালিত মুক্তি প্রতী’ক্ষিত ছবি ‘তুমি আছো তুমি নেই’র পোস্টার ও ট্রেইলার। তা দেখে তুমুল সমালোচনা শুরু হয়েছে চলচ্চিত্রপ্রেমীদের মধ্যে।

অনেকেই বলছেন, এ রকম গৎবাঁধা পোস্টার এক দশক আগেই বাতিল হয়ে গেছে! অনেকে সেই পোস্টার দেখে নির্মাতা ও প্রযোজককে সময়ের সঙ্গে তাল মেলানোর পরা’মর্শও দেন।

পোস্টারের সেই সমালোচনা যেন আরো উস্কে দিলো এই ছবির ট্রেইলার। প্রায় আড়াই মিনিটের ট্রেইলারেও এফডিসিকেন্দ্রিক সেই পুরোনো ও গৎবাঁধা গল্পের আভাস। নেই কোনো নতুনত্ব।

কাহিনী, সংলাপ, সম্পাদনা ও শব্দেও সেকেলে ছাপ!অনেকে মজা করে বলছেন, ‘এটা কি সিনেমা, না যাত্রা পালা?’ দেলোয়ার জাহান ঝন্টুর মতো নির্মাতার কাছ থেকে এই সময়ে এসে এরকম সিনেমা আশা করেননি অনেকে।

সিনেমার নায়িকা দীঘিও ট্রেইলার দেখে হতাশা ব্যক্ত করেন। তিনিও সাক্ষাৎকারে গ’ণমাধ্যমে দাবি করেন, ছবিটি বেশ মানহী’ন। সিনেমাটি চলবে না। এই মন্তব্যের জন্য এবার ১ কোটি টাকার মানহানি মা’মলার মুখে পড়তে যাচ্ছেন দীঘি।

মা’মলাটি করবেন তারই সিনেমার পরিচালক ঝন্টু। ইউটিউবে এক ভিডিও সাক্ষাৎকারে ছবির নায়িকা হয়েও সমালোচনা করার জন্যই দীঘির বি’রুদ্ধে এ হু’মকি দিয়েছেন পরিচালক।

ওই সাক্ষাৎকারে দেলোয়ার জাহান ঝন্টু বলেন, আজ-কালকের মধ্যে হাইকোর্ট থেকে ওর (দীঘি) কাছে উকিল নোটিশ চলে যাবে। আমি ওকে ছাড়বো না।গত ৮ মার্চ একটি ইউটিউব চ্যানেলে প্র’কাশ হয় ঝন্টুর সাক্ষাৎকারটি।

এ সময় তার স’ঙ্গে সিনেমার প্রযোজক সিমিকেও দেখা যায়। সেখানে ঝন্টু অ’ভিযোগের সুরে বলেন, নায়িকা হয়েও দীঘি ‘তুমি আছো তুমি নেই’ সিনেমার সমালোচনা করেছে।

এটা ঠিক হয়নি। সে নায়িকা। তার কথায় দর্শক বিমুখ হবে। এতে করে সিনেমাটি চলবে না। দীঘির জন্য ১ কোটি টাকা ক্ষ’তি হবে আমার। আমি ওকে ছাড়বো না। যেভাবেই হোক আমি ওকে ছাড়বো না।

তিনি বলেন, দীঘি যখন বলেছে, ‘সিনেমাটি চলবে না’ তখন পরিচালক হিসেবে আমারও মানহা’নি হয়েছে। আমি মানহা’নি মা’মলা করবো দীঘি ও তার মা’মার নামে।

কারণ শুটিং, ডাবিংয়ের সময় দীঘি এ সিনেমার প্রশংসা করেছে, এখন কেন সে সমালোচনা করছে। ডেফিনেটলি দেয়ার ইজ সামথিং রং।উত্তেজিত কণ্ঠে এ নির্মাতা এসময় আরো বলেন, আমি দেলোয়ার জাহান ঝন্টু।

বাংলাদেশে আরেকটি নেই। উপমহাদেশে আমার মতো একজন চলচ্চিত্রকার নেই। উপমহাদেশে সবচেয়ে বেশি চলচ্চিত্র নির্মাণ করেছি আমি।আমি দুই কোটি টাকা নিয়ে সিনেমা বানিয়েছি, ২০ লাখ দিয়েও বানিয়েছি।

চলচ্চিত্র মেধা দিয়ে তৈরি হয়, টাকা দিয়ে না। এ বিষয়ে যোগাযোগ করে দীঘিকে না পাওয়া গেলেও তার বাবা অভিনেতা সুব্রত বলেন, এসব নিয়ে কথা বাড়াতে চাই না।