Friday , April 16 2021

গবেষণা: সঙ্গীকে চুম্বনই হতে পারে আপনার মৃ’ত্যুর কারণ

চুমু বা চুম্বন বিষয়টিকে প্রিয়জনের প্রতি ভালোবাসা বা প্রে’ম প্রকাশের একটা মাধ্যম হিসেবে দেখা হয়। ভালোবাসা সপ্তাহে তাই চুমুর জন্য রয়েছে পুরো একটি দিন। তবে প্রিয়জনকে চুম্বনই হতে পারে আপনার মা’রাত্মক ক্ষতির কারণ। ক্ষতি শুধু আপনারই নয় বরং অ’পর পক্ষেরও হতে পারে। তাহলে কী’ আপনিই আপনার প্রিয় মানুষকে মৃ’ত্যুর দিকে ঠেলে দিচ্ছেন?

না, অ’বাক হওয়ার কিছু নেই। সচেতনতায় জেনে রাখু’ন। বিশেষ দিনগুলোয় তরুণ-তরুণীরা না বুঝে এমন অনেক কিছুই করে থাকেন যার খেসারত পরবর্তীতে দিতে হয়। এমনকি অকাল মৃ’ত্যুর কারণও হতে পারে। গবেষণা মতে, চুম্বন ধূমপানের থেকেও ভ’য়ানক এবং বেশি ক্ষতিকর। ২০১৭ সালে মেইল সংবাদ মাধ্যম এ নিয়ে একটি প্রতিবেদন প্রকাশ করেছে। প্রকাশিত প্রতিবেদনে বলা হয়েছে চুম্বন ধূমপানের থেকে বিপদজনক।

গবেষণা বলছে, চুম্বন মা’থা ও ঘাড়ে ক্যান্সারের ঝুঁ’কি বাড়াতে উল্লেখযোগ্য ভূমিকা রাখে। গবেষকদের মতে, চুম্বনের মাধ্যমে হিউম্যান পাপিলোমা (এইচপিডি) নামক ভাই’রাস স্থা’নান্তরিত হয়। এই ভাই’রাস মূলত‘ফ্রেঞ্চ কিস’র সময় মানুষের দেহে প্রবেশ করে থাকে।

প্রকাশিত প্রতিবেদনে আরও বলা হয়েছে, মানুষের ঘাড় ও গলাতে অবস্থিত পরিপাকনালির অংশ এইচপিভি আ’ক্রান্তদের সাধারণ মানুষদের থেকে ২৫০ বারের অধিক ক্যান্সারের ঝুঁ’কি বৃদ্ধি করে। সাধারণতভাবে সার্ভিক্যাল ক্যান্সারের (জরায়ু মুখের ক্যান্সার) সঙ্গে সম্পৃক্ত থাকলেও এটি নারী-পুরুষ উভ’য়কেই সংক্রমণ করতে পারে।

এ বিষয়ে অস্ট্রেলিয়ার মা’থা ও ঘাড় বিশেষজ্ঞ ডাক্তার মাহিবান থমাস বলেছেন, যৌ’ন আকাঙ্ক্ষার পাশাপাশি সাধারণ উত্তেজিত হওয়ার সময় চুম্বনেও এইচপিভি স্থা’নান্তরিত হওয়ার সম্ভাবনা থাকে। এছাড়া ‘ফ্রেঞ্চ কিসিং’র মাধ্যমে তরুণ-তরুণীদের মধ্য এই ভাই’রাস আরও বেশি ছড়ায়।

তবে চুম্বনের কিছু স্বাস্থ্য উপকারিতাও রয়েছে। মানসিক চাপ কমাতে সহায়তা করে। সেই সঙ্গে বাড়িয়ে তোলে আত্মবিশ্বা’স। উচ্চ র’ক্তচাপ, শরীরে নানান ব্যথা কমাতে সহায়তা করে চুমু। এছাড়াও রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা বাড়িয়ে তোলে এটি। দাঁতের ক্ষয়রোধ করে, ওজন কমাতেও সহায়তা করে। তাহলে শুধু খা’রাপ দিক নয় বরং ভালো অনেকগুলো দিকও রয়েছে এর। তবে সব কিছুতেই সচেতন থাকা উচিত।